Khulna
July 23rd, 2018
Sports / খেলা
দেশে ফিরে মুশফিকদের সন্তুষ্টি প্রকাশ
April 3rd, 20134,820 views

তবে প্রধান কোচ শেন জার্গেনসেন ছুটি নিয়ে শ্রীলঙ্কা থেকেই অস্ট্রেলিয়া গেছেন। তার সঙ্গী হয়েছেন ফিল্ডিং এবং ব্যাটিং কোচ কোরি রিচার্ডস। আগামী ৭ এপ্রিল তাদের ঢাকায় ফেরার কথা রয়েছে। শ্রীলঙ্কায় দুই টেস্ট, তিন ওয়ানডে এবং একটি টি-টোয়েন্টি খেলেছে বাংলাদেশ। গলে এক ইনিংসে রেকর্ড রান তুলে প্রথম টেস্ট ড্র করে টাইগাররা। যদিও কলম্বো টেস্টে হেরে যাওয়ায় টেস্ট সিরিজটি ১-০ ব্যবধানে হারতে হয়েছে সফরকারী দলকে। টেস্ট সিরিজটি হারলেও তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজটিতে ১-১-এ ড্র করে বাংলাদেশ। হাম্বানটোটায় প্রথম ম্যাচ জেতে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কা। একই ভেন্যুতে বৃষ্টিতে ভেসে যায় দ্বিতীয় ওয়ানডে। পাল্লেকেলেতে সিরিজ নির্ধারণী শেষ ওয়ানডে ডাকওয়ার্থ লুইস পদ্ধতির সুবিধা কাজে লাগিয়ে জিতে নেয় সফরকারী দল। ৩১ মার্চ পাল্লেকেলে স্টেডিয়ামে একমাত্র টি-টোয়েন্টিতে হারলেও শেষ পর্যন্ত লড়াই করেছে বাংলাদেশ। 
অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম লঙ্কা সফর নিয়ে সন্তুষ্টির কথা জানিয়ে সাংবাদিকদের বলেন, ‘নতুনরা ভালো করেছে। বিশেষ করে দেড় বছর পর দলে ফিরে আশরাফুল ভাই টেস্ট ও ওডিআই দুটোতেই ভালো খেলেছেন। তবে আমরা আরও ভালো খেলার ক্ষমতা রাখি, যা মাঠে প্রমাণ করতে পারিনি। মূলত সেখানে ব্যাটিং উইকেট তৈরি করা ছিল। কারণ লঙ্কান ব্যাটিং লাইন খুবই শক্তিশালী।’ বোলিং নিয়ে মূল্যায়ন করতে গিয়ে মুশফিক বলেন, ‘আমাদের স্পিনাররা ভালো করলেও পেসাররা প্রত্যাশা অনুযায়ী খেলতে পারেনি। পেস বিভাগে আমাদের আরও উন্নতি করতে হবে। জিম্বাবুয়ে সফরে এই বিভাগ নিয়ে বিশেষ চিন্তা-ভাবনা করব।’ আশরাফুলের মনে পড়ে গেল শ্রীলঙ্কা সফরের প্রাথমিক দলে না থাকার কথা, ‘প্রথমত, আমি স্কোয়াডে ছিলাম না। অনেকদিন হয়তো ভালোও খেলছিলাম না। আলহামদুলিল্লাহ যে এবার পুরো সিরিজটাই ভালো হয়েছে। দলের দিক থেকে চিন্তা করলে ভালো হয়েছে। ব্যক্তিগতভাবে দেখলে এটা আমার এখন পর্যন্ত সেরা সফর। প্রত্যেকটা ইনিংসে ব্যাটিং উপভোগ করেছি। এভাবে পারফর্ম করার চেষ্টা করব ভবিষ্যতে।’ 
আশরাফুল টেস্ট স্কোয়াডে ঢুকেছিলেন শাহরিয়ার নাফীসের হাত কেটে যাওয়ায়। সেই আশরাফুলই সৌরভ ছড়ালেন গল টেস্টে ১৯০ রানের বড় ইনিংস খেলে। এটাই তার ব্যক্তিগত সেরা টেস্ট ইনিংস। একই সঙ্গে টেস্টে কোনো প্রতিপক্ষের বিপক্ষে হাজার রানের রেকর্ডও অতিক্রম করেছেন। ওয়ানডে এবং টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটেও রানে ছিলেন ২৯ বছর বয়সী এই ব্যাটসম্যান। পরিতৃপ্তির এমন সিরিজ শেষে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছেন আশরাফুল, ‘আমার যে প্রতিভা সে অনুযায়ী গত ১২ বছরে খেলতে পারিনি। আমার এবং দলের জন্য একটা ভালো পারফরম্যান্স দরকার ছিল। সেটা করতে পেরেছি। এখন থেকে চেষ্টা করব সিরিজ ধরে ভালো খেলার এবং উন্নতি করার জন্য।’ 
শ্রীলঙ্কা যাওয়ার সময় রাজ্জাকের মনে হয়েছিল, ওয়ানডে ক্রিকেটে ২০০ ক্রিকেটের মাইলফলক ছোঁবেন। কিন্তু দুই ম্যাচ চলে যাওয়ার পর আশা ছেড়েই দিয়েছিলেন। ভাগ্য সঙ্গে থাকায় শেষ ওয়ানডেতে পাঁচ উইকেট নিয়ে মাইলফলক স্পর্শ করেছেন রাজ্জাক, ‘২০০ ওয়ানডে উইকেট প্রাপ্তি আমার কাছে একটা বিশাল ব্যাপার, একটা মাইলফলক।’ 
আশরাফুল এবং মুশফিকের গল টেস্টে নাসিরও সেঞ্চুরি পেয়েছেন। ওয়ানডে অজেয় ইনিংস খেলে দলকে জয়ে এনে দিয়েছেন পাল্লেকেলেতে। তিনিও বলছেন এবারের সফর স্মরণীয়, ‘ব্যক্তিগতভাবে বলব, আমার জন্য খুব ভালো সফর হয়েছে। টেস্ট সেঞ্চুরি পাওয়ায় ভালো লেগেছে। আগে দুটো সেঞ্চুরি মিস করেছি। মনের মধ্যে কাজ করছিল সেঞ্চুরি করব। অভিষেক সেঞ্চুরি পেয়েছি, কিন্তু আরও বড় ইনিংস খেলার সুযোগ ছিল। সেটা করতে না পেরে খারাপ লেগেছে।’ তরুণ মমিনুলের টেস্ট অভিষেক হয়েছে শ্রীলঙ্কায়। অভিষেক টেস্টের প্রথম ইনিংসেই পেয়েছেন হাফ সেঞ্চুরি (৫৫ রান)। কলম্বোর দ্বিতীয় টেস্টে ৬৪ এবং ৩৭ রান ধারাবাহিতকার পরিচয় দিয়েছেন তিনি। সফর নিয়ে খুশি মমিনুলও, ‘আমার লক্ষ্য ছিল টেস্টে ভালো খেলা। সুযোগ পেয়ে চেষ্টা করেছি রান করার। আলহামদুলিল্লাহ, রান পেয়েছি।’