Khulna
September 20th, 2018
Business / শিল্প-বাণিজ্য
আটশ' কোটি ডলার ইসলামিক বন্ড বিক্রি
November 19th, 20102,901 views

এশিয়ায় ক্রমেই জনপ্রিয় হয়ে উঠছে ইসলামী ব্যাংক ব্যবস্থা। বিভিন্ন ব্যাংক একের পর এক তাদের গ্রাহকদের জন্য ইসলামিক ব্যাংকিং সেবা চালু করছে। মালয়েশিয়ায় গত মে মাস পর্যন- পূর্ববতর্ী ১২ মাসে ইসলামী ব্যাংকিং পদ্ধতিতে গাড়ি বিনিয়োগ প্রদান ২০ শতাংশ বেড়েছে। ইন্দোনেশিয়ায় গত ৫ বছরে ইসলামী ব্যাংকিং শাখা বেড়েছে তিনগুণ। সূত্র: রিডার্স ডাইজেস্ট।

ইসলামী ব্যাংকিংয়ের এই ব্যাপক প্রসার শুধুমাত্র এশিয়ায় সীমাবদ্ধ থাকেনি। মুডি'র তথ্য অনুযায়ী চলতি বছর বিশ্বে ইসলামী ব্যাংকগুলোর বিনিয়োগ চাহিদা এক লক্ষ কোটি ডলার (এক ট্রিলিয়ন ডলার) ছাড়িয়ে যাবে। বর্তমানে উপসাগরীয় অঞ্চলের আরব দেশগুলোতে ইসলামী ব্যাংকিং বিনিয়োগের ক্ষেত্রে আধিপত্য বিস-ার করে আছে। তবে এশিয়াও খুব দ্রুত এগিয়ে আসছে।

ব্লুমবার্গ'র তথ্য মতে, এ বছর বিশ্বে আটশ' কোটি ডলার ইসলামিক বন্ড বিক্রি হয়েছে এবং এর মধ্যে ৬৮ ভাগ হলো এশিয়ায়। এশিয়ায় ইসলামী অর্থ ব্যবস্থার কেন্দ্র হিসেবে আবিভর্ূত হয়েছে মালয়েশিয়া । ইসলামিক বন্ড ইসু্যর ক্ষেত্রে তারা এখন বিশ্বে শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে। মালয়েশিয়ায় বর্তমানে যে পরিমাণ অর্থ বিনিয়োগ হচ্ছে তার ২০ ভাগ ইসলামী ব্যাংকগুলোর নিয়ন্ত্রণে। উপসাগরীয় অঞ্চলে এ অংশ ৩৫ ভাগ।

এশীয় অঞ্চলের ইসলামী ব্যাংকিং বিকাশের ক্ষেত্রে দেশী বিদেশী বিনিয়োগকারীরা জড়িত রয়েছেন। মালয়েশিয়া এ ক্ষেত্রে সবচেয়ে প্রতিযোগিতাপূর্ণ স্থানে পরিণত হয়েছে। স্থানীয় সিআইএমবি ইসলামিক ব্যাংক বিশ্বব্যাপী পরিচিত আর্থিক প্রতিষ্ঠান এইচএসবিসি'র ইসলামী শাখা 'আমানাহ' এবং স্ট্যান্ডার্ড চাটার্ড ব্যাংকের ইসলামিক শাখা 'সাদিক' এর সাথে প্রতিযোগিতা করছে। এশিয়ায় মালয়েশিয়া যেমন ইসলামী ব্যাংকিংয়ের ক্ষেত্রে সবচেয়ে উন্নতি লাভ করেছে তেমনি তাদের দেখাদেখি প্রতিবেশী ইন্দোনেশিয়া এবং সিঙ্গাপুরও এর বিকাশকে উৎসাহিত করছে।

ইন্দোনেশিয়ার ইসলামী ব্যাংকগুলো ক্ষুদ্র ও মাঝারি প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে অধিক বিনিয়োগের সিদ্বান- নিয়েছে। ইন্দোনেশিয়ায় সবচেয়ে বেশি মুসলমানের বসবাস। কিন্তু সে তুলনায় তারা ইসলামী ব্যাংকিংয়ের অনেক দেরীতে অগ্রসর হয়েছে। এখানকার কর্তৃপক্ষ ইসলামী ব্যাংকিং এর অনুমোদন দিয়েছে আর এজন্য একটি নিয়ন্ত্রণ ও আইনী কাঠামো উন্নয়নের কাজ করছেন। ইন্দোনেশিয়ার কর্তৃপক্ষ দেশটির সর্বত্র প্রথাগত ও ইসলামী ব্যাংকিং ব্যবস্থা সমন্বয়ে একটি দ্বৈত ব্যাংকিং ব্যবস্থা গড়ে তোলার জন্য কাজ করছে যাতে এটি অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে বা আর্থিক খাতে কোন সঙ্কট সৃষ্টি হলে তখন সহায়তা করতে পারে।

গ্রন্থণা: কাজী স্বর্ণরেখা