Khulna
November 17th, 2018
Sports / খেলা
নতুন সাজে খুলনার বিশ্বকাপ বিকল্প ভেনু্য
November 29th, 20103,465 views

বিশ্বকাপ ক্রিকেটের বিকল্প ভেনু্য হিসাবে সেজে উঠেছে শেখ আবু নাসের (বিভাগীয়) স্টেডিয়াম। আট মাসে গোটা স্টেডিয়ামের চেহারা পাল্টে গেছে। স্টেডিয়ামের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের নতুন সাজ দেখে ক্রীড়াপ্রেমীদের চোখ ছানাবড়া হতেই পারে। এক সঙ্গে এতো রূপ যেন খুলনাবাসীর কল্পনাকেও হার মানায়! বিশ্বকাপ ক্রিকেটের বিকল্প ভেনু্য হিসাবে ডিসেম্বরের মধ্যে পুরোপুরি প্রস্তুত হয়ে যাবে স্টেডিয়ামটি।

২০১১ সালের বিশ্বকাপ ক্রিকেটে বাংলাদেশ স্বাগতিক দেশ হিসাবে বিকল্প ভেনু্য হিসেবে প্রস্তুত থাকবে খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়াম। স্টেডিয়ামটি পূর্ণাঙ্গ আইসিসি মানের করতে গত বছর একনেকে অবকাঠামো উন্নয়নের জন্য ৫১ কোটি টাকা বরাদ্ধ দেয়া হয়। এ অর্থায়নে ইতিমধ্যে চারটি ফ্লাডলাইট টাওয়ারের মধ্যে তিনটি টাওয়ার, জয়েন্ট স্ক্রিণ ও ইলেকট্রিক স্কোর বোর্ড, গোটা মাঠে নতুন ঘাস প্রতিস্থাপন, মাঠ দুই ফুট উঁচু করার পাশাপাশি গ্যালারিতে ১১ হাজার চেয়ার বসানোর কাজ শুরু হয়েছে মিডিয়া বক্স, ভিআইপি গ্যালারি, খেলোয়াড় ও দর্শকদের জন্য আধুনিক সুযোগ- সুবিধা, গ্যালারি এবং মাঠ বর্ধিতকরণ ও বাউন্ডারি ওয়াল নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। এছাড়া স্টেডিয়ামের আটটি পিচ তৈরির কাজ চলছে দ্রুত গতিতে। মাঠের চারদিকে ৬ ইঞ্চি চওড়া করে পানি নিষ্কাশনের ড্রেন তৈরির কাজ প্রায় শেষ। ফলে বৃষ্টি হলে ওপরের পানি দ্রুত বেরিয়ে যাবে। বদলে যাচ্ছে স্টেডিয়ামের ড্রেসিংরুম। নতুন ড্রেসিং রুমের সাথে থাকছে দুটি পেস্নয়ার ডাইনিং রুম। গ্রাউন্ড ফ্লোরে থাকছে ১৫শ' বর্গফুটের জিমনেশিয়াম। যেখানে খেলোয়াড়দের জন্য অত্যাধুনিক ফিটনেস মেশিন রাখা হবে। পাশাপাশি খেলোয়াড়দের জরুরি চিকিৎসার জন্য স্টেডিয়ামে নির্মাণ করা হবে অত্যাধুনিক মেডিক্যাল সেন্টার। তৃতীয় তলায় নতুন করে ১০টি হসপিটালিটি বক্স নির্মাণ করা হয়েছে। গ্রাউন্ড ফ্লোরে থাকবে ভেনু্য কন্ট্রোল রুম।

খুলনা বিভাগীয় স্টেডিয়ামে আগে যারা মাথা নুইয়ে নিউজ কাভার করেছেন। তাদের জন্য সু-সংবাদ। সেই বিড়ম্বনা আর থাকছে না। চারশ' সাংবাদিক বসতে পারে এমনভাবে তৈরি করা হয়েছে নতুন প্রেসবক্স। তবে প্রথম পর্যায়ে দেশি- বিদেশী ২৫০ জন সাংবাদিক এ সুযোগ পাবে।

সূত্রমতে, মাঠ ও কনস্ট্রাকশন কাজে পারিশা এন্টারপ্রাইজ, ফ্লাড লাইট স্থাপনে বেঙ্গল ইলেট্রনিক্স, ইলেকট্রিক বোর্ড ও জায়ান্ট স্কীন, সিটি ক্যামেরা বিল্ডার্স ইঞ্জিনিয়ারিং ও চেয়ার ফিটিংস'র জন্য আইকন আর্কিটেক্স নামক প্রতিষ্ঠান কাজ করছে।

ভেনু্য ম্যানেজার আব্দুস সাত্তার কচি জানান, পুরো প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে শেখ আবু নাসের স্টেডিয়াম হবে এশিয়ার অন্যতম আধুনিক একটি স্টেডিয়াম।

খুলনা বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থার সহ-সভাপতি ও খুলনা সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র আজমল আহমেদ তপন জানান, গত এপ্রিল মাস থেকে স্টেডিয়ামকে নতুন সাজে সজ্জিতকরণের কাজ শুরু হয়। প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা আগামী ৩১ ডিসেম্বর। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে তা শেষ হবে। তিনি বলেন, ক্রীড়া পরিষদ থেকে আরো কিছু অর্থ পাওয়া গেলে একই সঙ্গে গ্যালারির নিচে আধুনিকায়নসহ আরো কিছু কাজ সমাপ্ত করা যেতো। তারপরও স্বল্প সময়ে স্টেডিয়ামকে যেভাবে নতুন সাজে সজ্জিত করা হচ্ছে তা নিঃসন্দেহে প্রশংসনীয়।