Dhaka
January 20th, 2018
Your e-Mail / অভিমত
নিরাপদ সড়কের দাবি ও পুলিশের বাড়াবাড়ি
October 1st, 20103,619 views

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশের মেকাট্রনিক্স বিভাগের ছাত্র হতভাগ্য মোস্তাফিজুর রহমান। ক্যাম্পাসের পার্শ্ববর্তী ধানমণ্ডি ৫নং সড়ক পার হতে গিয়ে গত ২৫ সেপ্টেম্বর ওয়াসার পানিবাহী গাড়ির চাকায় পিষ্ট হয়ে সে নির্মমভাবে প্রাণ হারায়। সুদূর নীলফামারী থেকে সে পড়তে এসেছিল ঢাকায়। সহপাঠী হারানোর শোকে বিক্ষুব্ধ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্ররা অবিলম্বে স্পিডব্রেকার ও ফুটওভার ব্রিজের দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশ করতে গেলে ধানমণ্ডি থানা পুলিশ বেপরোয়া লাঠিচার্জ শুরু করে।

 

ছাত্রদের রক্ষা করতে গিয়ে শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারীরাও পুলিশের লাঠিচার্জের শিকার হন। পুলিশের বেসামাল ঔদ্ধত্য আচরণের শিকার হন বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানিত ভিসি ও ট্রেজারার ম্যাডাম। মর্মান্তিক এই মৃত্যুর প্রতিবাদ ও রাস্তা পারাপারের নিরাপত্তা দাবি করে যৌক্তিক এ বিক্ষোভের প্রতি এরূপ বর্বরতা দিন বদলের সরকারের পুলিশের কাছে মোটেই কাম্য নয়।

 

পুলিশ এখনো ঘাতক ড্রাইভারকে গ্রেফতার করেনি। আমরা অবিলম্বে ঘাতক ড্রাইভারের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই। উল্লেখ্য, মোস্তাফিজের নিহত হওয়ার কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে ফার্মগেটে আরেকটি দুর্ঘটনায় প্রাণ হারায় কলেজছাত্র আরিফ। এভাবে একের পর এক সড়ক দুর্ঘটনায় তরুণ প্রাণের ঝরেপড়া কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি জনচলাচলের নিরাপত্তার স্বার্থে অতিদ্রুত কার্যকর ব্যবস্থা নেওয়া হোক। ধানমণ্ডি ৫নং সড়কসহ রাজধানীর অন্য ব্যস্ত সড়কগুলোতে স্পিডব্রেকার ও ফুটওভারব্রিজ নির্মাণ করা হোক। সেই সঙ্গে সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে পুলিশের এহেন বর্বর ও অমানবিক কর্মকাণ্ডের সুষ্ঠু বিচার চাই।

মো. আবদুল মতিন

শিক্ষার্থী, ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ।